1. tanvirinternational2727@gmail.com : NewsDesk :
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন

“আমি মানুষের হৃদয়ে যায়গা করে নিতে চাই” হৃদয়।

  • সময় : শুক্রবার, ২৪ জুলাই, ২০২০
  • ৬৬১

বিনোদন আড্ডা

শান্ত : অভিনয়, উপস্থাপনা, বিজ্ঞাপন চিত্রের মডেল সব ক্ষেত্রেই সমানভাবে বিচরণ করছেন। প্রথম দেখাতেই পাশের বাড়ির ছেলেটির মত খুব কাছের মনে হবে। সুদর্শন, মিষ্টভাষী ঠোঁটের কোনে সবসময় মিষ্টি হাসি লেগে থাকা মানুষটি আমাদের আজকের অতিথি। পুরো নাম মৃদুল হাসান হৃদয়।
প্রথমেই স্বাগত জানাই আপনাকে, কেমন আছেন হৃদয় ভাই?

হৃদয় : চারিদিকে যে অবস্থা বিরাজমান তাতে আমরা মানসিকভাবে কেউই তেমন ভালো নেই। শারিরীক ভাবে ভালো আছি কাজ করছি এইতো। তাছাড়া আমি একটু বেশি ইমোশনাল আমার পাশের মানুষটি যদি ভালো না থাকে তাহলে আমি বা আমরা কি করে ভালো থাকি।তার পরেও এই পরিস্থিতি সামলে নিয়ে আস্তে আস্তে সবাই আমরা অভ্যস্ত হয়ে উঠছি।

শান্ত : আর কয়েকদিন পরেই ঈদুল আজহা, অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছরের পরিস্থিতি একটু অন্যরকম। তার পরেও কমবেশি ব্যস্ততা রয়েছে ঈদের কাজের। আপনার কজের সামগ্রিক অবস্থা যদি একটু বলেন।

হৃদয় : ঈদের জন্য টেলিভিশন এবং ইউটিউব চ্যানেল এর জন্য বেশ কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেছি এর মাঝে কাজল আরেফীন অমি ভাইয়ের নাটক “ওয়াই”। এতে আমার সহশিল্পী হিসেবে পেয়েছি তওসিফ মাহবুব এবং সাবিলা নূরকে। এই নাটকে আমাদের তিনজনের চরিত্রই সমান গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া ওসমান মিরাজ ভাইয়ের পরিচালনায় ইউটিউব চ্যানেলের জন্য একটি কাজ করলাম। সৌরভ মল্লিকের পরিচালনায় “কাজিন ফ্যাক্ট” নাটকের কাজ শেষ করলাম এটিও ইউটিউবে অন-এয়ার যাবে। তপু খান ভাইয়ের পরিচালনায় একটি ফিকশনের কাজ এই সপ্তাহের মধ্যেই শেষ করব। এছাড়া আমি দীর্ঘদিন যাবৎ ফ্যাশন মডেলিংয়ের সাথে জড়িত। এবারেও বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠিত ব্রান্ডের হয়ে ফটোশুট করেছি। আর এ ছাড়া বেশ কয়েকটি টিভিসি এবং ওভিসির কাজ শেষ করেছি, আরও কয়েকটি টিভিসি, ওভিসির কাজ করব এগুলো ঈদের সময় থেকে নিয়মিত ভাবে প্রচারিত হবে।

শান্ত : আপনার মিডিয়ায় কাজের শুরুটা যদি একটু বলেন

হৃদয় : আমি ২০০৮- ২০০৯ সালে প্রথম মিডিয়াতে কাজ শুরু করি কিন্তু তখন আমার পারিবারিক জীবন এবং আমার চাকরির জন্য আমি সাময়িকভাবে মিডিয়া থেকে কিছুটা দূরে ছিলাম আবার আমি বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেল আর টিভির ক্রাইম ফিকশন ” সময়ের গল্প” উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে আবার কাজ শুরু করলাম। এবং আমি সত্যি ভাগ্যবান যে আমার পরিচালক সহ শিল্পী কলাকুশলী সবাই আমাকে আবার খুব আপন করে নিয়েছেন। কাজের বিষয় প্রচুর সহযোগিতা করছেন।

শান্ত : বিজ্ঞাপনের সংখ্যা কতগুলো? কোন কোন নির্মাতার পরিচালনায় বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন?

হৃদয় : আমার বিজ্ঞাপনের সংখ্যা ৩০ এর বেশি। আমি খুবই ভাগ্যবান যে আমি দেশসেরা সব গুনী নির্মাতাদের সঙ্গে কাজের সুযোগ পেয়েছি। ওনাদের সান্নিধ্য পাওয়া যে কোন শিল্পীর জন্য সৌভাগ্যের বিষয়। আমি সেই অর্থে ভাগ্যবান যে তাদের মত বড় বড় পরিচালকদের সঙ্গে কাজের ফলশ্রুতিতে অনেক কিছু শেখার সুযোগ হয়েছে এবং সব থেকে বড় কথা ভালো কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পেরেছি।

শান্ত : আপনি খুব ভালো উপস্থাপনা করেন। একজন ভালো উপস্থাপক হতে হলে কোন বিষয় গুলো মাথায় রাখতে হয়।

হৃদয় : আমি ভালো উপস্থাপনা করি কিনা সেটা আমার দর্শকেরাই ভালো বলতে পারবেন তবে উপস্থাপনা বিষয়টি আমাকে মন্ত্রমুগ্ধের মত টানে। আমি খুব আনন্দ নিয়েই কাজটি করি। আমি এমনিতেই একটু চুপচাপ স্বভাবের দরকার ছাড়া খুব একটা হই হুল্লোড় করতে পারিনা কিন্তু মঞ্চে মাইক্রোফোন হাতে ওঠার সাথে সাথে কেমন যেন ম্যাজিকাল মোমেন্ট তৈরী হয়। দর্শকদের সাথে সরাসরি কানেকশন, এগুলো বলে বোঝানো যাবেনা। তবে খুব সতর্ক থাকতে হয় যেহেতু সরাসরিভাবে দর্শক উপস্থিত থাকেন তাই প্রতিটি কথা বা মজা যাই করি না কেন তা অবশ্যই তাৎপর্যপূর্ণ হওয়া চাই। আর উপস্থাপনা হচ্ছে একটি অনুষ্ঠানের সংযোগ সেতু। এই সংযোগটি একজন উপস্থাপক যত সুন্দর ভাবে করতে পারেন সমগ্র অনুষ্ঠানটি তত সুন্দর হয়।

শান্ত : সারা বিশ্বের মিডিয়াতে ওয়েব সিরিজের ঝড় বইছে আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতেও এই ঝড় শুরু হয়েছে খুব স্বভাবিকভাবে কিন্তু প্রথমেই বেশ কিছু প্রজেক্টস নিয়ে ব্যপক সমালোচনা শুরু হয়েছে। আপনি একজন অভিনেতা হয়ে বিষয়টি কিভাবে পর্যালোচনা করবেন।

হৃদয় : এখানে অনেকগুলো বিষয় নিয়ে কথা বলার আছে। একটু বিস্তারিত ভাবে বলতে গেলে, ধরুন সারা বিশ্বে ওয়েব সিরিজ যে ফরম্যাটে চলছে তাতে আমরা এখনো অনেকটা পিছিয়ে আছি। মনে করুন বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় ওয়েব প্লাটফর্ম আছে নেটফ্লিক্স, আ্যমাজন,হইচই,উলু প্রভৃতি। এখানে আমরা প্রতিমাসে একটি নির্ধারিত অঙ্কের টাকার বিনিময়ে আমরা তাদের তৈরি কনটেন্ট দেখি, যার যেমন ইচ্ছে। এখানে স্পষ্ট ভাবে রেটিং করা আছে এটি ১৮ প্লাস, এটি থ্রিলার, এটি রোমান্টিক, এটি কমেড়ি। এখন কারো যদি এডাল্ট কনটেন্ট দেখতে ইচ্ছে হয় সে দেখবে। আমি যে প্লাটফর্ম গুলোর নাম নিলাম তারা কিন্তু বাইরের, তারা আমাদের দেশ থেকে তাদের কনটেন্ট দেখিয়ে টাকা নিয়ে যাচ্ছে।সেটা নিয়ে কেউ কোন কথা বলছি না যখনি আমাদের দেশে কয়েকটি প্লাটফর্ম চেষ্টা করল কিছু একটা করার তখন সেটা পাইরেসি হয়ে ইউটিউবে চলে আসলো কিন্তু এগুলো তো ইউটিউবের কনটেন্ট না। নেটফ্লিক্সের কনটেন্ট পাইরেসি হয়না অথচ আমাদের এখানে কনটেন্ট গুলো পাইরেসি হয়ে ইউটিউবে চলে আসলো। আমার মোদ্দা কথা হলো আমি অভিনেতা আমার কাজ হলো চরিত্র টিকে ভালোভাবে ফুটিয়ে তোলা বিশ্বাসযোগ্য করে তোলা। একজন অভিনেতা হিসেবে আমার কাজ অভিনয় করা এবং আমি সেই কাজটি ভালোভাবে করতে চাই। এমনিতেই কাজের সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে সিনেমা হল নেই, টেলিভিশনে দর্শকরা বিদেশি কনটেন্ট এর উপর অনেকদিন আগে থেকে ঝুঁকে পড়েছে। সেখানে অনলাইনে ওয়েব প্লাটফর্ম টাকে কাজে লাগানো উচিৎ ছিল আমাদের।

শান্ত: হৃদয় ভাই কতদিন মিডিয়ায় কাজ করতে চান?

হৃদয় : শান্ত ভাই আমি মনে করি, মিডিয়াতে আমি এখনো সত্যিকার অর্থে নবীন। প্রতিদিন আমি শিখছি। আমি কখনোই পারিশ্রমিক নিয়ে মাথা ঘামাইনি। আমি একটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছি আমি ভালো কাজের জন্য কষ্টকরে হলেও সময় বের করি। আমাকে নায়ক হতে হবে সেটা কখনই আমি মাথায় নেই না। আমি প্রথমেই গল্পটাকে দেখি। আমার ভেতরে ভালো গল্পে কাজ করার প্রচন্ড ক্ষুধা অনুভব করি। আর তাই আমাকে যারা কাজে নেন সেই পরিচালকদের প্রতি আমি সত্যি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আর দর্শকদের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই যে এখনো টেলিভিশনে এত বিজ্ঞাপনের ভীড়ে, নাটকের ভীড়েও আমার কাজ তারা দেখেন আমাকে ভালোবাসেন সুতরাং তারা যতদিন আমাকে দেখতে চাইবেন আমি ততদিনই কাজ করতে চাই।

শান্ত: হৃদয় ভাই বাংলাদেশ বুলেটিন ২৪.কমের পক্ষ থেকে আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনার ভালো কাজের পরিধি বিস্তৃত হোক।

হৃদয় : শান্ত ভাই আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ। বাংলাদেশ বুলেটিন ২৪.কমের পুরো পরিবারকে ধন্যবাদ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
©বাংলাদেশবুলেটিন২৪