1. tanvirinternational2727@gmail.com : NewsDesk :
শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সাবেক বাঁশখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ জহিরুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে দেশে ফিরে আসেন এইদিনে শেখ হাসিনা গোপালপুরে ‘ঈদ উপহার’ পেয়ে খুশি তৃতীয় লিঙ্গের অসহায়রা জীবননগরে “আমাদের জীবননগর” গ্রুপ থেকে সদাকাতুল ফিতর বিতরণ। ব্রাহ্মন বাড়িয়ার নাসিরনগরে ফান্দাউক ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাহুল রায়ের নেতৃত্বে ইফতার বিতরন ঘুষ গ্রহনের অভিযোগে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থানার এসআই ক্লোজ নড়াইলের কুমড়ি এলাকা পুরুষ শুন্য পাকা ধান কাটছে মহিলারা ময়মনসিংহের ভালুকায় স্কুলছাত্রী নিহত ব‌রিশালসহ বালা‌দেশ মে‌রিন একা‌ডে‌মির ৪‌টি ক‌্যাম্পাস উ‌দ্বোধন ত্রিশাল হেল্পলাইনের উদ্যোগে সচেতনতা মূলক স্টিকার এবং মাস্ক বিতরণ

মাদক ও নগ্নতার আখড়া ঈশ্বরদীর স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্ট

  • সময় : সোমবার, ৩ মে, ২০২১
  • ১৭৮

বার্তা সংস্থা পিপ, পাবনা :

মাদক, আর নগ্নতায় ভরপুর পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার জয়নগরের স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্ট।
সম্প্রতি রিসোর্ট নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশিত হলে নানা আলোচনা-সমালোচনার জন্ম হয়।

এর পরই সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকে চালানো হয় গোপন অনুসন্ধান। সেইসব অনুসন্ধানেও এসব নেতিবাচক তথ্য উঠে এসেছে।

বিভিন্ন সুত্র ও স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান, স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্টে প্রতিনিয়ত মদ, নারী ও মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন বিতর্কিত ব্যক্তিদের অসামাজিক কার্যকলাপ ও উচ্চ শব্দের ডিজে পার্টির কারণে এলাকার পরিবেশ চরমভাবে নষ্ট হচ্ছে।
রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত দেশী-বিদেশী নাগরিক, শিক্ষার্থী ও উচ্চ বিত্তের তরুণ-তরুণীরা রিসোর্ট কর্তৃপক্ষের খপ্পরে পরে বিপুল অঙ্কের টাকা খোয়ানোর ঘটনা এখন নিত্যদিনের ঘটনা।
অভিযোগ রয়েছে, এই রিসোর্টির মালিক জামায়াত-বিএনপির একজন অন্যতম পৃষ্ঠপোষক। বর্তমানে তিনি ভোল পাল্টিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছেন।
বিগত জোট সরকারের সময় তার ভুমিকা কি ছিল তা তদন্ত করলেই বেরিয়ে আসবে বলে দাবি করেন স্থানীয়রা।
তথ্য অনুসন্ধানে জানা গেছে, স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্টের মালিক আলহাজ্ব খায়রুল ইসলাম বিগত কয়েক বছর আগেও জয়নগর শিমুলতলা এলাকার একজন ট্রাক বন্দবস্তকারী ছিলেন।
পরবর্তীতে চাউল ব্যবসার কমিশন এজেন্ট হয়ে বিভিন্ন ব্যবসায়ীর টাকা মেরে শিল্পপতি বনে যান।
বিপুল পরিমাণ ব্যাংক লোন আর ওই সমস্ত ব্যবসায়ীদের টাকায় তিনি একের পর এক গড়ে তোলেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।
সর্বশেষ তিনি প্রতিষ্ঠা করেন স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান।
এর মধ্যেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনি কর্নেল সৈয়দ ফারুক রহমানের অন্যতম সহযোগী ও ফ্রিডম পার্টির নেতা ঈশ্বরদীর আলোচিত এক ধনার্ঢ্য ব্যক্তির শীষ্যত্ব গ্রহণ করেন তিনি।
এরপর আর খায়রুল ইসলামকে পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। ওই ব্যক্তির সার্বিক সহযোগীতায় তিনি ফুলে-ফেঁপে বড় হতে থাকেন।
নিজের উত্থান সম্পর্কে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে খায়রুল ইসলাম গর্ব করেই বলেন ‘আমার জন্মদাতা পিতা আমার জন্য যা করেনি, (নাম উল্লেখ করে ও দেখিয়ে বলেন) এই ব্যক্তি আমার জন্য তাই করেছেন। তিনি আমার আব্বা।’
সুত্র জানায়, ফ্রিডম পার্টির ওই নেতার পরিচয়ে খায়রুল ইসলাম ঈশ্বরদীসহ আশেপাশের এলাকায় নিটল-নিলয় গ্রুপের ট্রাক বিক্রয়, জমি ক্রয়সহ বিভিন্ন কাজের মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্টের একাধিক সুত্র জানান, মদ বিক্রয়ের সরকারী বা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কোন অনুমোদন স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্টের নেই।
তারপরও দেশী-বিদেশী মদ এই রিসোর্টে বিক্রয় করা হয়।
স্বপ্নদ্বীপ রিসোর্টের অপর একটি সুত্র জানায়, গত বছর ইংরেজী বছর উদযাপনকে কেন্দ্র করে রাজশাহী থেকে বিভিন্ন মাদক দ্রব্য আনার সময় গাড়িসহ খায়রুল ইসলাম রাজশাহীর এক থানায় আটক হন।
সেই সময় খায়রুল ইসলাম ওই থানায় দুই লাখ টাকার দরকষাকষি শুরু করেন। তখন থানায় রিসোর্টের রন্ধনকারী ও খায়রুল ইসলামের পিএসসহ চালককে আটক করে বসিয়ে রাখা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
©বাংলাদেশবুলেটিন২৪