1. tanvirinternational2727@gmail.com : NewsDesk :
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ১১:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুবিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু ময়মনসিংহের ত্রিশালে ডোবা থেকে কিশোরের মরদেহ উদ্ধার শরণখোলা প্রেসক্লাবের সামনে শিক্ষক শহিদুলের মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে শিক্ষকদের মানববন্ধন এডিপি পক্ষ থেকে নন্দীরগাঁও ইউনিয়নেলক্ষাধিক টাকার ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ ত্রিশালে পাশে দাঁড়াও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের বৃক্ষ রোপন ময়মনসিংহে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে গেলো ১০ ঘর চার নম্বর বিয়ে?’..ট্রোলড শ্রাবন্তী কুমিল্লার দেবীদ্বার পৌর মার্কেট মালিক সমিতির কমিটি গঠন গফরগাঁওয়ের রসুলপুরের দুই বোনকে ভারতে পাচারকারী চক্রের সদস্য গ্রেপ্তার ময়মনসিংহ বিভাগীয় সদর দপ্তরের জায়গা পরিদর্শনে শফিকুর রেজা বিশ্বাস

কুমিল্লার দেবীদ্বারে পুত্রবধূকে মেনে না নেয়ায় নববধূর আত্মহত্যা

  • সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ মে, ২০২১
  • ১১৭


মোঃ সাইফ উদ্দিন রনী, কুমিল্লা ব্যুরো প্রধান:


কুমিল্লার দেবীদ্বারে প্রেমের বিয়েতে মেয়ের পরিবার রাজি থাকলেও ছেলের পরিবার রাজি ছিল না। তাই বিয়ে মেনে না নেয়ায় মনের কষ্টে নববধূর আত্মহত্যা। বুধবার ভোর রাত ৩ টায় দেবীদ্বার উপজেলার ধামতী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড ধামতী উত্তরপাড়া বক্স আলীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ধামতী গ্রামের ৫নং ওয়ার্ডের মৃত শামসুল হকের কন্যা নিহতা স্বর্ণা আক্তার মিম (১৯) ও একই গ্রামের ৪ নং ওয়ার্ডের আব্দুর রহিম মাস্টারের ছেলে মোহাম্মদ কামরুল হাসান (৩১) এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং এক বছর প্রেম করার পর গত ১৯-০৪-২০২১ইং তারিখে কোর্টের মাধ্যমে বিয়ে সম্পন্ন করেন তারা। বিয়েটি মেয়ের পরিবার মেনে নিলেও ছেলের পরিবার তা মেনে নেয়নি। বিয়ের পর থেকে মেয়ে তার স্বামীকে নিয়ে মেয়ের বড় বোনের বাসা দেবীদ্বারে অবস্থান করত।
গত তিনদিন আগে নিহতার মা প্রয়োজনে ঢাকায় দেবরের বাসায় যায়। এ সময় বাড়িতে ছোট ভাই একা থাকবে বলে ও গৃহপালিত পশু-পাখি দেখাশোনা করার জন্য মেয়েকে তার বাড়িতে ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ুয়া ছোট ভাইয়ের সাথে থাকতে দিয়ে যায়।
গতরাত ৩ টার দিকে সেহরি খেতে উঠলে ছোট ভাই বড় বোনকে দেখতে না পেয়ে পাশের ঘরের লোকজনকে ডাকাডাকি করে আনলে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বাড়ির পুকুরের উত্তর-পশ্চিম কোণায় আম গাছের সাথে নাইলনের রশি দ্বারা ফাঁসি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়।
বিষয়টি দেবীদ্বার থানা পুলিশকে অবহিত করলে বৃহস্পতিবার বেলা ১২ ঘটিকার সময় থানার উপ-পরিদর্শক ওমর ফারুকের নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়ে লাশ নামিয়ে থানায় নিয়ে আসেন। এসময় নিহতের পরনে একটি লাল ছাপার কামিজ ও ফিরোজা রঙের স্যালোয়ার এবং গায়ে একটি সিল্কের ওড়না জড়ানো ছিল।
এ বিষয়ে থানার উপ-পরিদর্শক মো. ওমর ফারুক বৃহস্পতিবার জানান, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ নামিয়ে থানায় নিয়ে আসি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতার স্বামীকে থানায় আনা হয়েছে। লাশ সুরতহাল রিপোর্ট এর জন্য মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা চলছে। নিহতার মোবাইল ফোনে দেখা যায় গত রাত ২টা ৩০ মিনিটে মেসেজের মাধ্যমে বোনের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন, কি কারনে তার তদন্ত চলছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যায় শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাদের বিয়ে মেনে না নেয়ার কারনে মনের মধ্যে কষ্ট নিয়ে হয়তো আত্মহত্যা করেছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ও আমাদের তদন্ত শেষে ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
©বাংলাদেশবুলেটিন২৪