1. tanvirinternational2727@gmail.com : NewsDesk :
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:০৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে পুলিশ উদ্ধার করল বিকাশে খোয়া যাওয়া টাকা ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ শিক্ষার্থীদের মাঝে তুলে ধরতে হবে’ কুবিতে ‘ছায়া জাতিসংঘ সংস্থা’র নতুন কমিটি গঠন আত্রাই ছোট নদীতে বালু উত্তোলন অব্যাহত প্রশাসন নীরব সুনামগঞ্জে সেতু নির্মাণের দাবীতে অর্ধ শতাধিক গ্রামের মানুষের মানববন্ধন গাইবান্ধায় জুয়া খেলার টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ নওগাঁয় ফেন্সিডিল সহ যুবকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ নালিতাবাড়ীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে বাল্যবিবাহ বন্ধ বরের তিন মাসের জেল বাংলাদেশ ছাএলীগ জামালপুর শহর শাখার বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত খুলছে শাহাজালাল ও বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যাল , বাড়ানো হবে নিরাপত্তা-নজরদারি

জীবননগর অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ঐহিত্যবাহী লাঠি খেলা

  • সময় : রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২৫

মুতাছিন বিল্লাহ,জীবননগর অফিসঃ

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর অনুষ্ঠিত হয়ে গেল মনোমুগ্ধকর লাঠি খেলা। গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলার আয়োজনকে ঘিরে স্থানীয়দের মাঝে ছিল উৎসবের আমেজ। রবিবার (৫ সেপ্টেম্বর ) উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামে অনুষ্ঠিত হয় ঐতিহ্যবাহী এই প্রাচীন খেলা।

কালের ক্রমে হারিয়ে যাওয়া লাঠি খেলা দেখতে ভিড় করে নানা বয়সের মানুষ। গ্রামীন এ ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলাকে টিকিয়ে রাখতে দরকার প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতা এমনটাই মনে করেন দর্শনার্থীরা।

তেঁতুলিয়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, ঢাক, ঢোল আর কাঁসার ঘন্টার শব্দে চারপাশ উৎসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বাদ্যের তালে নেচে নেচে লাঠি খেলে অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে লাঠিয়ালরা। তারপরই চলে লাঠির কসরত। প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাত থেকে নিজেকে রক্ষা ও তাকে আঘাত করতে ঝাঁপিয়ে পড়েন লাঠিয়ালরা। এসব দৃশ্য দেখে আগত দর্শকরাও করতালির মাধ্যমে উৎসাহ যোগায় খেলোয়াড়দের। হারিয়ে যাওয়া এই ঐতিহ্য বাঁচিয়ে রাখতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার মাধ্যমে নিয়মিত এই ধরনের আয়োজন করার দাবি করেন দর্শকরা।

সমাজ থেকে অন্যায় অপরাধ দুর করতে আর হারানো ঐতিহ্য ধরে রাখতেই এই আয়োজন বলে জানান এই অনুষ্ঠানের প্রধান পরিকল্পনাকারী ও আয়োজক শুকুর আলী।

তিনি আরো জানান,দীর্ঘদিন করোনার কারণে সবকিছুই বন্ধ ছিল।এখন পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষের কিছুটা বিনোদন আর হারানো ঐতিহ্য ধরে রাখতেই এই আয়োজন করা হয়েছে।

রাজিব হোসেন নামের এক দর্শক বলেন,অনেক দিন পর লাঠি খেলা দেখছি, নবীন ও মুরুব্বিরা খেলছেন, দেখতে খুব ভালো লাগছে। প্রত্যেক বছর যদি এভাবে খেলা হয় তাহলে আমরা দেখতে পারি গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য। এজন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাই।

শনিবার দুপুর থেকে রবিবার সন্ধ্যা অবধি দু’দিন চলা লাঠিখেলায় তেঁতুলিয়া গ্রামের লাঠিয়াল বাহিনী অংশগ্রহণ করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
©বাংলাদেশবুলেটিন২৪