1. tanvirinternational2727@gmail.com : NewsDesk :
বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন ২০২২, ১১:৩৬ অপরাহ্ন

আশুলিয়ায় শ্রমিকদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীতে বিএনপি নেতার হামলা

  • সময় : বৃহস্পতিবার, ২৬ মে, ২০২২
  • ১১

আশুলিয়া প্রতিনিধি :

সাভারের আশুলিয়ায় বকেয়া বেতনের দাবিতে একটি কারখানায় অবস্থানকালে বিএনপি নেতার হামলার শিকার হয়েছেন ভুক্তভোগী শ্রমিকরা। এঘটনায় থানায় সাধারন ডায়েরি করেছেন ভুক্তভোগীরা।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) দুপুরে সাধারণ ডায়েরির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শ্যামলেন্দু ঘোষ। এর আগে গতকাল আশুলিয়ার পল্লিবিদ্যুতের ডেন্ডাবর এলাকার আলিফ ফ্যাশনের ভিতরে এ ঘটনা ঘটলে সাধারণ ডায়েরি করেন শ্রমিকরা। তবে শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবারও কারখানার সামনে অবস্থান নিয়েছেন।

অভিযুক্ত বিএনপি নেতা হলেন আসাদুল্লাহ আহমেদ দুলাল। তিনি আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়ন বিএনপির নব্য গঠিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক এবং গণি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের স্বত্বাধিকারী।

শ্রমিকরা জানায়, গত জানুয়ারি মাসে ১১৪ জন শ্রমিক নিয়ে ওই কারখানা চালু করেন কারখানা কতৃপক্ষ। পরের মাস থেকেই শ্রমিকদের বেতন পরিশোধে তালবাহানা করেন। দুই মাস বেতন প্রদান করলেও গত এপ্রিল মাসের বেতন দিতে আবারও টালবাহানা শুরু করেন। সর্বশেষ এই গত এপ্রিল মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য গত ১৩ মে দিন ধার্য্য করা হয়। এর পর ১৫ ও ১৮ মে তারিখ পরিবর্তন করেন কতৃপক্ষ। গত ১৮ মে আবারও বেতন পরিশোধ না করলে কারখানায় অবস্থান নেয় শ্রমিকরা। পরে ২২ তারিখে বাধ্য হয়ে বেতনের কিছু অংশ পরিশোধ করেন কারখানা কতৃপক্ষ। বাকি বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা অবস্থানে অনঢ় থাকে। পরবর্তীতে গত ২৫ মে ভোরে কারখানা ভবনের মালিক বিএনপি নেতা দুলাল দরজার লক ভেঙে নারী শ্রমিকদের ওপর হামলা করেন। এসময় নারী পোশাক শ্রমিকরা হামলার শিকার হয়।

অবস্থানরত শ্রমিক মায়া বাংলাদেশ বুলেটিন ডটকমকে বলেন, আমরা কারাখানার ভিতরে শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচী পালন করছিলাম। কিন্তু গত ২২ তারিখ ভোরে কারখানা ভবনের মালিক দুলাল সাহেব হঠাৎ গেটের লক ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে হামলা করেন। এসময় নারী শ্রমিকদের চড়, থাপ্পড় ও কিলঘুষিসহ মারধর করে কারখানা থেকে বের করে দেন। পরে আমরা থানায় গিয়ে সাধারন ডায়েরি করি। বকেয়া বেতন না দিয়ে কারখানার দরজায় তালা লাগানো হয়েছে। আমরা আমাদের বেতন চাই।

সাধারণ ডায়েরির বাদী মোমিন বলেন, গতকাল অহেতুক আমাকে মারধর করা হয়েছে। এঘটনায় থানায় সাধারন ডায়েরি করেছি। ভোর বেলাও তিনি শ্রমিকদের ওপর হামলা করেছিলেন।

এব্যাপারে অভিযুক্ত বিএনপি নেতা আসাদুল্লাহ আহমেদ দুলাল বলেন, আমার কোন গার্মেন্টসও নাই। আমার কোন কিছু হয়ও নাই। আমার ভবন আমি ভাড়া দিয়েছি। সেখানে ঝামেলা ছিল, তাই প্রশাসনের অনুরোধে সেখানে গিয়েছিলাম। এসময় তারা ইয়া করেছে, পরে আমি চলে এসেছি। হামলার ব্যাপারে তিনি বলেন, এসব যদি আমি করে থাকি তার ভিডিও আমার কাছে রয়েছে। ওদের কাছে কিন্তু কোন অ্যাভিডেন্স নাই।

এব্যাপারে কারখানার মালিক হাবিবুর রহমানের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি।

গার্মেন্টস শ্রমিক ঔক্য লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক সারোয়ার হোসেন বাংলাদেশ বুলেটিন ডটকমকে বলেন, দেশের অর্থনীতির হাতিয়ার যারা তাদেরকে পাওনা থেকে বঞ্চিত করে আবার তাদের ওপরই নির্যাতন করা অত্যন্ত অমানবিক। আমরা মনে করি একটি অশুভ চক্র যার মূলহোতা হচ্ছে কারখানা ভবনের মালিক। তিনি গার্মেন্টস খাতে অসন্তোষ সৃষ্টির লক্ষে এবং শ্রমিকদের ভিতরে যাতে ব্যাপক অন্তোষ সৃষ্টি হয় এব্যাপারে কাজ করছেন। আমরা প্রশাসন ও গোয়েন্দা সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। একই সাথে শ্রমিকদের বকেয়া বেতন ও নির্যাতনের বিচার দাবি করছি। আমরা যতদূর শুনেছি গার্মেন্টস ভবনের মালিক নবগঠিত বিএনপি কমিটির ধামসোনা ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক। তিনি এমন একটি দলের সাধারন সম্পাদক যে দল ১৯৯১ সালে দাবির মুখে কৃষকদের নির্বিচারে গুলি করে হত্যা করেছেন। তাদের কাছে ভাল কিছু আশা করা যায় না।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শ্যামলেন্দু ঘোষ বাংলাদেশ বুলেটিন ডটকমকে বলেন, গতকাল একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। এব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের অন্যান্য খবর
©বাংলাদেশবুলেটিন২৪